400+ বাংলা শব্দের উৎস ও বিবর্তন pdf download

বাংলা শব্দের উৎস ও বিবর্তন pdf download



400+ বাংলা শব্দের উৎস ও বিবর্তন pdf download


বাঙলা শব্দভাণ্ডারের মূল ভিত্তি গঠন করেছে তদ্ভব শব্দ এবং এই তদ্ভব শব্দগুলোকেই খাঁটি বাঙলা শব্দ বলে অভিহিত করা হয়। বাঙলা শব্দভাণ্ডারে তদ্ভব ছাড়া আছে তৎসম, অর্ধতৎসম, দেশি ও বিদেশি শব্দ। তৎসম শব্দের মূল সন্ধান করতে হলে সংস্কৃত ব্যাকরণের দ্বারস্থ হওয়া ছাড়া গত্যন্তর নেই। সাধারণতঃ একটা একাক্ষর ধাতুমূলের সঙ্গে কৃৎপ্রত্যয়, তদ্ধিত প্রত্যয়, উপসর্গ-আদির যোগে এক একটা তৎসম শব্দ গঠিত হয়, এগুলো বাঙলা ব্যাকরণ বা ভাষাতত্ত্বের আওতায় আসে না। অর্ধতৎসম শব্দগুলো সংস্কৃত শব্দের বিকৃতিতে উৎপন্ন, অতএব এদের মূলে আছে কোন না কোন তৎসম শব্দ। অধিকাংশ দেশি শব্দই দ্রাবিড় বা অস্ট্রীক / নিষাদ ভাষা থেকে আগত, কিছু শব্দের মূলের সন্ধান পাওয়া যায় না, এজাতীয় অধিকাংশ শব্দই অজ্ঞাতমূল।

বিদেশি শব্দগুলো কোন না কোন বিদেশি ভাষা থেকে সরাসরি অথবা অপর কোন ভাষার মাধ্যমে আগত, এদের কতক অবিকৃত ভাবে বর্তমান রয়েছে, কতক বিকৃতি লাভ করেছে; তবে এরূপ সব শব্দেরই মূলের সন্ধান পাওয়া যায়। বাকি রইলো খাঁটি বাঙলা শব্দ ‘তদ্ভব’। তদ্ভব শব্দগুলো তৎসম শব্দ থেকে বিবর্তনের মধ্য দিয়ে উৎপন্ন হয়েছে। অতএব তদ্ভব শব্দের মূলে আছে তৎসম শব্দ এবং এ দু’য়ের মাঝে আছে এক বা একাধিক স্তর, যেখানে শব্দটি ক্রম-বিবর্তিত রূপে বর্তমান। এই মধ্যবর্তী স্তরটি প্রধানতঃ প্রাকৃতের স্তর। কোন কোন অস্তবর্তী স্তরটি প্রাচীন বাঙলা বা মধ্যযুগের বাঙলা হওয়াও বিচিত্র নয়।

সংস্কৃত বা প্রাচীন ভারতীয় আর্যভাষা প্রাকৃত ভাষায় রূপান্তরিত হয়েছে কারো খেয়াল-খুশিমতো নয়, এর মধ্যে বেশ কয়টি সুনির্দিষ্ট ভাষাতাত্ত্বিক নিয়ম খুঁজে পাওয়া যায়। আবার প্রাকৃত ভাষা থেকে বাঙলা ভাষার উদ্ভবের মূলেও কতকগুলো নিয়মের কার্যকারিতা লক্ষ্য করা যায়। প্রধান নিয়ম অল্পকয়টি হ’লেও মোট নিয়মের সংখ্যা কম নয়, অধিকন্তু নিয়মের ব্যতিক্রমও আছে যথেষ্ট। সমস্ত বাঙলা তদ্ভব শব্দের মূল খুঁজতে গেলে সব নিয়মই জানতে হবে। (বিশেষ আলোচনার জন্য ধ্বনি-বিচার': পঞ্চদশ অধ্যায়’টি দ্রষ্টব্য)। তবে প্রধান নিয়মগুলো জানা থাকলেই অধিকাংশ তদ্ভব শব্দের ব্যুৎপত্তি নির্দেশ করা সম্ভবপর। নিম্নে প্রধান নিয়মগুলো সূত্রাকারে প্রদত্ত হ'লো। পুনরুক্তি দোষ নিবারণ এবং স্থান-সংক্ষেপের জন্য শব্দের ব্যুৎপত্তি প্রদর্শনকালে কখনো কখনো নিয়মের উল্লেখ না করে শুধু সূত্রের উল্লেখ করা হয়েছে এখানে, ঐ ক্ষেত্রে, ব্যাখ্যাকালে সূত্রানুযায়ী নিয়মের উল্লেখ প্রয়োজন।

৪০০-এর বেশি উল্লেখযোগ্য  বাংলা শব্দের উৎস ও বিবর্তন pdf আকারে দেওয়া হলো।



Post a Comment

0 Comments